,

অবশেষে জকিগঞ্জে এলজিইডির নারী শ্রমিকদের সেই ৮ লক্ষ টাকা ফেরত

জকিগঞ্জ :
জকিগঞ্জে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের(এলজিইডি) অধীনে বিভিন্ন রাস্তায় কাজ করা ১৮ জন নারী শ্রমিকের মাসিক সঞ্চয়ের ৮ লক্ষ টাকা আতœসাতের অভিযোগ দাখিলের প্রায় একমাস পর বৃহস্পতিবার সেই টাকা ফেরত পেয়েছেন ভুক্তভোগীরা। ভুক্তভোগী নারীরা গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর জকিগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত আবেদন করেছিলেন।
উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ জানান,আত্মসাতের টাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিয়ে লিখিত মাফ চেয়েছিলেন মঞ্জুর হোসেন। পাশাপাশি টাকা ফেরত দেয়ার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জকিগঞ্জের তৎকালীন উপজেলা প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান, বিদ্যুৎ দাস ও বর্তমান উপজেলা প্রকৌশলী ইমতিয়াজের প্রচেষ্টায় আত্মসাতের টাকা ফেরত দেন।
ভুক্তভোগী অনিতা রায়, আনোয়ারা বেগম, শিল্পনা রায়, অঞ্জলি বিশ্বাস, শিরিনা বেগম,সিলন্তি রায় প্রমুখ জানান,১৮ জন নারী শ্রমিক এলজিইডি জকিগঞ্জের বিভিন্ন রাস্তার কর্মী হিসেবে দুই বছর নিয়োজিত ছিলেন। চুক্তি মোতাবেক গত জুন মাসে তাদের প্রকল্প শেষ হয়। প্রতি মাসের ভাতা থেকে প্রত্যেকের ১৮শ টাকা সঞ্চয়ী হিসাবে জমা হবার কথা এবং গচ্ছিত টাকা প্রকল্প শেষ হবার সাথে সাথেই নারী কর্মীদের পাবার নিয়ম রয়েছে। নারী শ্রমিকরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ব্যাংকে তাদের নামে কোনো হিসাবই খোলা হয়নি এবং ব্যাংকে তাদের কোনো টাকাই জমা হয়নি। তাদের অভিযোগ এলজিইডি জকিগঞ্জ অফিসের হিসাব সহকারী মনজুর আহমদ ১৮ নারী শ্রমিকের ৮ লক্ষ টাকা আতœসাৎ করেছিলেন। তিনি এ টাকা দেয়ার দায়িত্বে ছিলেন। নারী শ্রমিকেরা মনজুর আহমদের নিকট টাকা চাইলে দেই দিচ্ছি করে তিনি সময় ক্ষেপন করেন।
করেন।

     এ জাতীয় আরো খবর