,

‘এই সময়টায় ফেইসবুকে কম যাওয়ার চেষ্টা করি’

মামুন রেজা, স্পোর্টস রাইটার::: কদিন ধরে কথা শুনছে না তার ব্যাট। ভালো ইনিংসের ইঙ্গিত দিয়েও হুটহাট বাজে শটে সাজঘরে ফিরেছেন সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়া সিরিজে। রান পেলেও নন ধারাবাহিক। সৌম্যর এমন জোয়ারভাটায় তিক্ত সমর্থকরা নেমেছেন তার সমালোচনার প্রতিযোগিতায়।

তবে সমালোচনা গায়ে না মাখতে অফ ফর্মের সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক এড়িয়ে চলেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। সেই সাথে সমালোচনাকে দেখছেন ইতিবাচক বিষয় হিসেবেই।

বুধবার সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে সৌম্য বলেন, ‘এই সময়টায় ফেইসবুকে কম যাওয়ার চেষ্টা করি। যেহেতু আমাদের দেশে কেউ ভালো খেললে তাকে নিয়ে অনেক আলোচনা হয়, খারাপ খেললেও কথা হবেই। এটাকে ইতিবাচকভাবে দেখি।‘

ক্রিকেট সমর্থকরা সমালোচনা করলেও আলোচনায় যে আছেন, এতেই সৌম্য খুঁজে নিচ্ছেন মানসিক শক্তি। নিন্দুকদের মুখ বাঁহাতি ওপেনার বন্ধ করতে চান পারফরমেন্স, তথা রান দিয়েই। সৌম্য বলেন, ‘ভালো-মন্দ যাই হোক, সবাই আমাকে নিয়েই কথা বলছে। এসব ভেবে মানসিকভাবে শক্ত থাকার চেষ্টা করি। সমালোচকদের চুপ করানোর একটাই উপায় আছে, সেটা হলো রান করা। আমি কঠোর পরিশ্রম করছি রান করার জন্য।‘

শ্রীলঙ্কায় দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ভালো পারফরমেন্স প্রদর্শন করেছিলেন সৌম্য। ঐ সিরিজে চার ইনিংসে তার মোট রান ছিল ১৯৫, ছিল তিনটি পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংস। সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে সৌম্য জানালেন, অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও শ্রীলঙ্কার মতোই খেলতে চেয়েছিলেন তিনি- ‘শ্রীলঙ্কাতে যেভাবে খেলেছি, এখানেও সেভাবে খেলতে চেয়েছি। কারণ শ্রীলঙ্কার উইকেট আর আমাদের উইকেট প্রায় একই রকম। এ কারণেই ওই ধরনের ব্যাটিংই করেছি। যতটুকু সময় উইকেটে ছিলাম, ব্যাটেও বল আসছিলো। কিন্তু একটা ভুলের কারণে আউট হয়ে যাচ্ছিলাম।’

যে ভুলের কারণে আউট হয়ে যাচ্ছিলেন, জানালেন- কাজ করছেন সেটি নিয়ে, ‘এটা নিয়ে কাজ করছি। দেখছি যে, এটা আমার ভুল নাকি ওরা বেশি ভালো বল করেছে। এই ভুলটা যাতে ওখানে (দক্ষিণ আফ্রিকায়) গিয়ে না হয়, সেই চেষ্টা করছি।’

  • দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে খেলা বাংলাদেশের জন্য কঠিন হবে বলে মনে করছেন সৌম্য। তবে ‘কঠিন’ মনে হলেও তার কণ্ঠে মিশে থাকল ভালো করার প্রত্যয়, ‘কঠিন সিরিজ হবে। তারপরও তো খেলতেই হবে! চেষ্টা করবো বাউন্সি উইকেটে যেভাবে রান করা যায়, সেখানে ওইভাবে খেলতে। মানসিকভাবেও সেভাবে প্রস্তুত হব। তবে কঠিনের মধ্য দিয়েই ভালো করতে পারলে সেটা বেশি মর্যাদা পাবে। নিজেকেও আত্মবিশ্বাসী মনে হবে। ওদের মাটিতে, ওদের কন্ডিশনে গিয়ে ভালো কিছু করতে পারলে আলাদা মজা থাকবে। চেষ্টা করব ভালো কিছু করার এবং পিছনের ম্যাচগুলো ভুলে যাওয়ার।

     এ জাতীয় আরো খবর