,

জকিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা শুরু

জকিগঞ্জ(সিলেট)::

জকিগঞ্জ পৌরসভার পৌর পরিষদের মেয়াদ শেষ হবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে। নির্বাচন কমিশন থেকে যে সব পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্নের তারিখ জানতে চাওয়া হয়েছে এর মধ্যে জকিগঞ্জ একটি। শুনা যাচ্ছে আগামী আক্টোবরে নির্বাচনের তফসীল ঘোষণা এবং ডিসেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। এই পরিপ্রেক্ষিতেই পৌরসভা নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীরা নড়েচড়ে উঠছেন;শুরু করেছেন তৎপরতা। সরকার দল আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে বর্তমান মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.খলিল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ফারুক আহমদ, প্রয়াত মেয়র আনোয়ার হোসেন সুনা উল্লাহর পুত্র উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল আহাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমেরকিা প্রবাসী এডভোকেট এমাদ উদ্দিন। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন পৌরসভা বিএনপির সাবেক সভাপতি বদরুল হক বাদল, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন হিরা। জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী সাবেক মেয়র আব্দুল মালেক ফারুক। আল ইসলাহ সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে পৌর আল ইসলাহর সভাপতি মাওলানা কাজী হিফজুর রহমান। এ ছাড়া গত নির্বাচনে খেলাফত মজলিস থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী সোনার বাংলা সমবায় সমিতির সভাপতি মো. জাফরুল ইসলাম প্রার্থী হতে পারেন।
জকিগঞ্জ পৌরসভার চতুর্থ মেয়র নির্বাচন ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সে নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী বর্তমান মেয়ের হাজী মো. খলিল উদ্দিন ১৫৩০ ভোট, তার নিকটতম আল ইসলাহ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী হিফজুর রহমান (মোবাইল ফোন) ১৩৭১ ভোট, আ্ওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ফারুক আহমদ(জগ) ১৩৪৩ ভোট, খেলাফত মজলিসের প্রার্থী জাফরুল ইসলাম ১২৫৩ ভোট, জাপার আব্দুল মালেক ফারুক ১২৪৮ ভোট, বিএনপির বদরুল হক বাদল ১২০৩ ভোট পেয়েছিলেন।
সিলেটের জকিগঞ্জ বাংলাদেশের জেলাগুলোর মধ্যে জেলা সদর থেকে সবচেয়ে দূরত্বের উপজেলার নাম। জেলা সদর থেকে এ উপজেলার দূরত্ব প্রায় ৯১ কিলোমিটার। সীমান্তবর্তী এ উপজেলা সদরকে ১৯৯৯ সালের ১ সেপ্টেম্বর পৌরসভায় উন্নীত করা হয়। প্রথম পৌর নির্বাচন হয় ২০০৬ সালের ১৩ মার্চ। নয়টি ওয়ার্ডের এ পৌরসভায় লোকসংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার। এর মধ্যে মোট পরিবারের সংখ্যা দুই হাজার ৮৪৫টি। সাত দশমিক ২৮ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এ পৌরসভায় বর্তমান ভোটার প্রায় সাড়ে ১২ হাজার।
জকিগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠার প্রায় দুই দশক পরেও সেই গ্রাম্য কাঠামোর পৌরসভার শ্রেণি পরিবর্তন না হওয়ায় ‘গ’ শ্রেণির পৌরসভায় প্রত্যাশিত উন্নয়নও নেই।
আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীরা করোনায় লকডাউনের সময় বাড়ি বাড়ি খাবার পৌঁছানো, জানাযাসহ নানা সামাজিক অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে জানান দিচ্ছেন নিজেদের প্রার্থীতার কথা।

 

     এ জাতীয় আরো খবর