,

জকিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫৫০ শিক্ষার্থী শিক্ষক ৪

শ্রীকান্ত পাল, জকিগঞ্জ ::
শিক্ষক সংকটের কারণে জকিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম ভেঙ্গে পড়েছে। প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষকসহ ২৮টি পদের মধ্যে ২৪ শিক্ষকের পদই শূণ্য। ৪ জন শিক্ষকই চালাচ্ছেন ১০টি শাখার সাড়ে পাঁচশত শিক্ষার্থীর পাঠদান।
উচ্চমান সহকারী ও নিম্নমানসহকারীর ২টি পদ দুটিও শূন্য। এ দুটি পদ শূন্য থাকায় শিক্ষকদেরই অফিসের অতিরিক্ত কাজ করতে চালাতে হয়। ফলে ক্লাস চালাতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে শিক্ষকদের।
বিদ্যালয় সুত্রে জানা যায়, ৪র্থ শ্রেণীর ৫ টি পদের বিপরতে আছেন মাত্র ২জন। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী সংখ্যা সাড়ে ৫শ। ষষ্ট থেকে দশম শ্রেণীর প্রতিটি শ্রেণীতে ২টি করে শাখায় ১০টি ক্লাস চালাতে হয় শিক্ষকদের। ৪ জন শিক্ষক দিয়ে ১০টি ক্লাস চালানো অসম্ভব বলে জানান শিক্ষকরা।
পারভীন বেগম নামে এক অভিভাবক জানান, শিক্ষকের অভাবে নিয়মিত ক্লাস না হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে। তাছাড়া দুটি শাখা একত্র করে গাদাগাদি করে বসিয়ে দায়সারা ক্লাস নেয়াতে শিক্ষার্থীদের পাঠ নিতে সমস্যা হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ অনেক বিষয়ের শিক্ষক নেই। ফলে ভেঙ্গে পড়েছে পুরো পাঠদান ব্যবস্থা। নবম শ্রেণীতে পড়–য়া ছেলেকে নিয়ে এখন কি করবো ভেবে পাচ্ছি না।
অভিভাবক আব্দুল মালেক ফারুক জানান, পৌরসভার প্রাণকেন্দ্রে একটি মাত্র মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এমন দায়সারা শিক্ষা দানের কারণে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা চরমভাবে হতাশ। বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে ছাত্রদের প্রায়ই বাহিরে ঘুরাফেরা করতে দেখা যায়। তিনি দ্রুত শিক্ষক নিয়োগের জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানান।
ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিন জানান, মাত্র ৪জন শিক্ষক দিয়ে ১০টি ক্লাস চালানো কোনভাইবেই সম্ভব নয়। দুইটি শাখা একত্র করে এবং স্থানীয়ভাবে আরোও দুজন শিক্ষক দিয়ে আপাতত ক্লাস চালিয়ে নিচ্ছি। তিনি বলেন, শিক্ষক স্বল্পতার বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

     এ জাতীয় আরো খবর