,

নয় বছর পর দেশের বাইরে বাংলাদেশের সিরিজ জয়

রেজা, স্পোর্টস রাইটার।।

সেন্ট কিটসে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে রানে জিতে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। ২০০৯ সালের পর প্রথমবারের মতো বিদেশের মাটিতে দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজ জিতলো বাংলাদেশ। ঘটলো দীর্ঘ নয় বছরের অপেক্ষার অবসান।

দুই উইন্ডিজ ওপেনার ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসকে প্রথমদকে আটকে রেখেছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তাজা ও মেহেদি হাসান মিরাজ। দারুণ লাইন ও লেন্থ বজায় রেখে নিয়ন্ত্রিত বোলিং করছিলেন দুজন। ধীরে ধীরে ক্রিস গেইল খোলস থেকে বেরিয়ে এসে আগ্রাসী রূপ ধারন করলেও মন্থর ব্যাটিং করেন এভিন লুইস। ষষ্ঠ ওভারে মেহেদি হাসান মিরাজের বলে এক চার ও এক ছক্কা হাঁকান গেইল। ছয় হাঁকিয়ে বল হারিয়ে ফেলেন গেইল।

বিধ্বংসী ব্যাটিং করতে থাকেন গেইল। প্রতি ওভারেই বলকে পাঠাচ্ছিলেন সীমানার বাইরে। বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তাজা। প্রথম দুই ওয়ানডের মতো এ ম্যাচেও মাশরাফির গুড লেন্থের বলে পরাস্ত হন এভিন লুইস।

টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তাজা। অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই মাঠে নামে বাংলাদেশ। শুরু থেকে তামিম ইকবাল সাবলীল ব্যাটিং করলেও উইন্ডিজ বোলাররা আটকে রাখেন আগের ম্যাচে বিস্ফোরক ব্যাটিং করা এনামুল হক বিজয়কে। তামিম ইকবালের রানের চাকা ছিল সচল। খোলস থেকে বের হতে না পারেননি এনামুল। বের হওয়ার চেষ্টায় বিদায় নেন তিনি।

জেসন হোল্ডারের শর্ট বলে হুক করতে চাইলেও ব্যাটে-বলে সংযোগ ঠিকমতো হয়নি। মিডঅনে সহজ ক্যাচ নেন কিরন পাওয়েল। ৩৫ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ৩১ বল খেলে ১ ০ রান করেন এনামুল।

তিনে নেমে শুরু থেকেই স্বছন্দে ব্যাটিং করেন সাকিব আল হাসান। জেসন হোল্ডারের বলে হাওয়ায় ভাসানো নান্দনিক স্ট্রেইট ড্রাইভ খেলে পান প্রথম বাউন্ডারি। বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য এ জুটি এগিয়ে নিয়ে যায় দলের রান। দুজন মিলে গড়েন ৭১ রানের জুটি। সাকিব আল হাসান ক্রিজে টিকে গিয়েছিলেন ভালোভাবেই। তবে স্কোর বড় করতে পারেননি। ৩ চারে ৪৪ বলে ৩৭ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন। রানের গতি বাড়াতে গিয়ে অ্যাশলে নার্সের বলে ছক্কা হাঁকাতে চেয়ে সুইপ করেছিলেন সাকিব। সীমানার কাছে ধরা পড়েন কিমো পলের হাতে।

অর্ধশতক পূরণ করে শতকের পথে এগিয়ে যান তামিম ইকবাল। রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করতে থাকেন তামিম ও মুশফিকুর রহিম। অ্যাশলে নার্সের বলে মুশফিকের ছক্কা হাঁকানোর পরের ওভারে কটরেলের বলে ছক্কা হাঁকান তামিম। ৩১ তম ওভারে কিমো পলের বলে দুই চার মারেন তামিম। ১০০ থেকে ১৫২ রানে পৌঁছাতে মাত্র ৫২ বল লাগে বাংলাদেশের।

মুশফিক বড় ইনিংসের সম্ভাবনা জাগালেও তার অপমৃত্যু ঘটে। ১২ রান করে অ্যাশলে নার্সের লেগ স্টাম্পের লাইনের বল খেলতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান মুশফিক। এরপর তামিমকে নিয়ে হাল ধরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুজন মিলে গড়েন ৪৮ রানের জুটি। নার্ভাস নাইন্টিতে প্রবেশের পর দ্বিতীয় ছক্কা হাঁকান তামিম। ক্যারিয়ারের একাদশতম শতক তুলে নেন তামিম ইকবাল। শতক হাঁকানোর পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তামিম। দেবেন্দ্র বিশুর বলে সুইপ করে ধরা পড়েন কিরন পাওয়েলের হাতে।  দলীয় ২০০ রানের মাথায় ফিরে যান তামিম।

১০৩ রান করেন তামিম ইকবাল। সিরিজের দ্বিতীয় শতক তিনি সাজান ৭ চার ও ২ ছক্কায়। তামিমের বিদায়ের পর ছয় নম্বরে ব্যাট হাতে নেমে যান মাশরাফি বিন মুর্তাজা। সিদ্ধান্তটা কাজেও লাগে। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে ৫৩ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নিয়ে যান মাশরাফি।

শুরু থেকেই মাশরাফি বিন মুর্তাজা খেলতে থাকেন মারকুটে ভঙ্গীতে। জেসন হোল্ডারের এক ওভারে টানা তিন বলে তিন চার মেরেই ঝড়ের আভাস দেন মাশরাফি। ইনিংসের ৪২ তম ওভার ছিল সেটি। ঐ ওভারে ১৬ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। হোল্ডারের পরের ওভারে ছক্কা হাঁকান মাশরাফি। অপর প্রান্তে থাকা মাহমুদউল্লাহও দারুণ ব্যাটিং করেন। মাশরাফি ও মাহমুদউল্লাহর ৫৩ রানের জুটি ভাঙেন হোল্ডার। থার্ড ম্যানের মাথার উপর দিয়ে মারার চেষ্টা করতে গিয়ে গেইলের হাতে ধরা পড়েন মাশরাফি। ৪ চার ও ১ ছক্কায় ২৫ বলে ৩৬ রান করে বিদায় নেন অধিনায়ক।

এরপর ঝড় তুলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তাকে সঙ্গ দেন সাব্বির রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ৪৮ তম ওভারে কিমো পলের বলে ছক্কা হাঁকিয়ে অর্ধশতক পূর্ণ করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৪৯ তম ওভারে দুই বলে দুই চার মেরে পরের বলে আউট হয়ে যান সাব্বির রহমান (৯ বলে ১২)। সাব্বিরের বিদায়ের পর ডাউন দ্যা উইকেটে এসে ছক্কা ও লেট কাট করে চার মেরে দুই বলে দশ রান নেন রিয়াদ। ঐ ওভারে রান হয় ১৯। শেষ ওভারে মোসাদ্দেককে সাথে নিয়ে আরো ১২ রান যোগ করলে ৩০০ রানের চৌকাঠ পার করে বাংলাদেশ। ৪৯ বলে ৬৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন মাহমুদউল্লাহ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ৩০১/৬, ৫০ ওভার

তামিম ১০৩, মাহমুদউল্লাহ ৬৭*, সাকিব ৩৭, মাশরাফি ৩৬

নার্স ২/৫৩, হোল্ডার ২/৫৫, কটরেল ১/৫৯

     এ জাতীয় আরো খবর