,

পরিসংখ্যানে বিপিএল

  মামুন রেজা, স্পোর্টস রাইটার:: সাত দলের অংশগ্রহণে আর মাত্র দুই দিন পর থেকেই শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ও আকর্ষণীয় আয়োজন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরের খেলা। স্বাগতিক সিলেট সিক্সার্স ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শনিবার থেকে পর্দা উঠবে এবারের আসরের।

বিপিএলের পঞ্চম আসর শুরুর আগে দেখে নেওয়া যাক বিপিএলের বিগত আসরগুলোর পরিসংখ্যান-

সবচেয়ে বেশি ম্যাচঃ বাংলাদেশ জাতীয় দলের দুই ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাব্বির রহমান যৌথভাবে আছেন এই তালিকার শীর্ষে। উভয় ক্রিকেটারই এখন পর্যন্ত খেলেছেন ৫১টি করে ম্যাচ। এরপরে রয়েছেন এনামুল হক বিজয়। ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স ও চট্টগ্রাম ভাইকিংসের হয়ে চার আসর মিলিয়ে মোট ৪৯ ম্যাচে অংশ নিয়েছেন তিনি। ৪৮ ম্যাচ খেলে পরবর্তী অবস্থানে আছেন যথাক্রমে সাকিব আল হাসান, মুমিনুল হক ও নাসির হোসেন।

অধিনায়ক হিসেবে বেশি ম্যাচঃ অধিনায়ক হিসেবে দলকে বিপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছেন মাশরাফি মুর্তজা ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। উভয় ক্রিকেটারই এখনো পর্যন্ত তাঁদের দলকে ৪৫টি ম্যাচে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ৪২ ম্যাচে অধিনায়কের ভূমিকা পালন করে তাঁদের পরে অবস্থান বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের।

সর্বাধিক রান সংগ্রাহকঃ ৪৬ ম্যাচ ও ৪৩ ইনিংস খেলে ১১৭২ রান করে এ তালিকার শীর্ষে অবস্থান মুশফিকুর রহিমের। ৪৭ ইনিংসে ব্যাট করে  ১০৮৮ রান নিয়ে সর্বাধিক রান সংগ্রাহকের দ্বিতীয়স্থানে রয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তালিকার তৃতীয়স্থানে অবস্থান দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের। ৩৪ ম্যাচ ও ৩৩ ইনিংস খেলে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তাঁর সংগ্রহ ১০২৮ রান। এখনো হাজারি ক্লাবে ঢুকতে না পারলেও এরপরেই অবস্থান সাকিব আল হাসানের। তাঁর সংগ্রহ ৯৭১ রান।

সবচেয়ে বেশি অর্ধশতকঃ বিপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি চার মারার রেকর্ড (১০৪টি) গড়ার পাশাপাশি এই অর্জনটিও তামিম ইকবালের। বাঁহাতি এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের ঝুঁলিতে রয়েছে ১২টি অর্ধশতক। যা বিপিএলের ইতিহাসে একজন ব্যাটসম্যানের পক্ষে সর্বাধিক অর্ধশতকের রেকর্ড।

সবচেয়ে বেশি শতকঃ একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে বিপিএলের ইতিহাসে তিনটি শতকের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে এই রেকর্ডটি নিজের দখলে রেখেছেন বিশ্বব্যাপী ক্রিকেট ফেরি করে বেড়ানো উইন্ডিজের ক্রিকেটার ক্রিস গেইল। বিপিএলে সবচেয়ে বেশি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ডটিও তাঁর। এখনো পর্যন্ত ৬০টি ছয় হাঁকিয়েছেন এই ব্যাটসম্যান।

সর্বধিক উইকেট শিকারিঃ ঘরোয়া ক্রিকেটের জনপ্রিয় এই আসরে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরানোর কৃতিত্ব বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। বিপিএলের গত চার আসর থেকে তাঁর উইকেট শিকারের সংখ্যা ৬১টি। ১ উইকেট কম নিয়ে তাঁর ঘাড়ে তপ্ত নিঃশ্বাস ফেলছেন কেভন কুপার। উল্লেখ্য এই দুই বোলার ছাড়া এখনো পর্যন্ত কেউ ৫০ উইকেট শিকারের মাইলফলক স্পর্শ করতে পারেনি। ৪৭ উইকেট নিয়ে এই তালিকার তৃতীয়স্থানে রয়েছে বাংলাদেশি আরেক বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ রুবেল। তাঁর থেকে দুই উইকেট কম নিয়ে তালিকার চতুর্থস্থানে অবস্থান আরাফাত সানির।

সর্বাধিক ডিসমিসালঃ গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে থেকে এই অর্জনটিতে নিজের নাম লিখিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। ৩৫ ক্যাচ ও ৭ স্টাম্পিংয়ে তাঁর নামের পাশে সর্বাধিক ৪২ ডিসমিসাল। এরপরেই রয়েছেন শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তী ক্রিকেটার  কুমার সাঙ্গাকারা। তাঁর নামের পাশে রয়েছে ২০ ক্যাচ ও ১১ স্টাম্পিংয়ে মোট ৩১টি ডিসমিসাল।

দলীয় সর্বোচ্চঃ এক ইনিংসে দলীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি বিপিএলের ইতিহাসে আসে ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ সালে। রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের করা ৪ উইকেটে ২১৭ রানের ইনিংসটি এখনো পর্যন্ত বিপিএলে দলীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

সর্বনিম্ন দলীয় স্কোরঃ বিপিএলের চতুর্থ আসরে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে মাত্র ৪৪ রানে অল-আউট হয়ে যায় আসরের নতুন দল খুলনা টাইটান্স। আর এই ম্যাচটিই জায়গা করে নেয় বিপিএলের রেকর্ড বইয়ের পাতায়।

সবচেয়ে বড় জয়ঃ রানের ব্যবধানে বিপিএলে সবচেয়ে বড় জয়টি হচ্ছে চট্টগ্রাম ভাইকিংসের দখলে। সিল্টে রয়্যালসের বিপক্ষে ২০১৩ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি ১১৯ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় চট্টগ্রাম। অন্যদিকে উইকেটের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় জয় সিলেট রয়েলসের বিপক্ষে বরিশাল বার্নাসের।

সবচেয়ে সফল অধিনায়কঃ বিপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা। চার আসরের মধ্যে ঢাকা গ্যাডিয়েটর্সের হয়ে দুইবার ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে একবার অর্থাৎ মোট তিনবার শিরোপা জিতেছেন তিনি। তাছাড়া কমপক্ষে ১০ ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দেওয়া অধিনায়কদের মধ্য ম্যাচে জয় পাওয়ার অনুপাতেও (৬৬.৬৬) এগিয়ে আছেন তিনি।

     এ জাতীয় আরো খবর