,

বীরশ্রী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরী সভা

ফয়ছল আহমদ,বীরশ্রী প্রতিনিধিঃ

১৫সেপ্টেম্বর বিকালে বীরশ্রী ইউনিয়ন কমপ্লেক্স হল রুমে বীরশ্রী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির এক জরুরী সভা সিনিয়র সহ সভাপতি আশরাফুল গনি বাহার ওযুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুলতান আজাদ এর আহবানে অনুষ্টিত হয়।অনুষ্টানের প্রথমেই পবিত্র কালাম থেকে তেলাওয়াত করেন বীরশ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি এম মাহমুূদ হোসেন।যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুলতান আজাদের উপস্হাপনায় উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন বীরশ্রী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আশরাফুল গনি বাহার।প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন বীরশ্রী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রিশ বছরের সাবেক সফল সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা জহির উদ্দিন।অন্যান্যদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন সহ সভাপতি সাবেক ইউ/পি সদস্য মোঃ আব্দুল আহাদ,আইন বিষয়ক সম্পাদক শামীম আহমদ,তথ্য ওগবেষনা বিষয়ক সম্পাদক কবির আহমদ,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ ইয়াকুব আলী,সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ মোঃ আব্দুল কু্দ্দূুছ,সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ আব্দুন নূর,সহ প্রচার সম্পাদক নাজমুল হক মজনু, বীর মুক্তিযোদ্ধা নিয়াজ আলী,আওয়ামীলীগ নেতা হিমাংশু বিশ্বাস,জাবির আহমদ,৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়ছল আহমদ প্রমূখ। সিনিয়র সহ সভাপতি আশরাফুল গনি বাহার স্বাগত বক্তব্যে উপস্হিত সম্পাদক মন্ডলীর সদস্যবৃন্দের উদ্দ্যেশ্যে বলেন আমি সভাপতিত্ব চাইনা আমি চাই গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলীয় কার্যক্রম পরিচালিত হওয়া।কাউন্সিল হওয়ার তিন বছর পার হয়ে গেলো কার্যকারী কমিটিতে কে কে আছেন কেহই তা সঠিক ভাবে বলতে পারেননা।তার কারণ হিসেবে তিনি বলেন আজ পর্যন্ত কার্যকারী কমিটির কোন সভা আহবান করা হয়নি,হয়নি কোন পরিচিতি সভাও।জাতীয় দিবসগুলোও ঠিকমত উদযাপিত হয়নি।দলীয় কার্যক্রম একেবারে স্হিতিশীল হয়ে পড়েছে। সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমগুলো জনগনের সম্মুখে তুলে ধরা হচ্ছেনা ।এছাড়াও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি দ্বয় সহ একই পরিবারের তিন তিন নক্ষত্রের মৃত্যুর পর হয়নি কোন স্মরন সভা।ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউনুছ আলীর মৃত্যুর পর দায়িত্ব গ্রহন করেন ছিদ্দেক আলী।অল্প দিনের মধ্যে তিনিও মৃত্যু বরণ করলে শোকে কাতর হয়ে পড়ে বীরশ্রী আওয়ামী পরিবার অথচ বীরশ্রী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা সত্তেও কোন ভূমিকা না নেয়ায় কার্যকারী কমিটির সকল সদস্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন।সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য বৃন্দ বক্তব্যে বলেন সাধারন সম্পাদক অমিত সরকার ইউনিয়ন নেত্রীবৃন্দের সাথে যেমন রাখেননি কোন যোগাযোগ তেমনি সাংগঠনিক ভাবেও কোন সভা,দলকে এগিয়ে নিতে নেতা- কর্মীদের নিয়ে নেই কোন মতবিনিময়।দলীয় কার্যক্রম গতিশীল করতে কোন ভূমিকা গ্রহন করেননি।এরই প্রেক্ষিতে সিনিয়র সহ সভাপতি আশরাফুল গনি বাহার এবং যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুলতান আজাদের আহবানে অনুষ্টিত হয় কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরী সভা।

     এ জাতীয় আরো খবর