,

যুবলীগ নেতার অভিযোগে জকিগঞ্জের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগ স্থগিত

জকিগঞ্জ ::
কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগে সিলেট জেলার জকিগঞ্জ উপজেলার ৩৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ স্থগিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজা। তিনি রোববার দুপুর ২টায় সিলেট সার্কিট হাউসে কানাইঘাটের শিক্ষকদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় জকিগঞ্জের ৬৯নং সুলতানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ করেন জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর যুবলীগের সদস্য সাজু ইবনে হান্নান খান। জকিগঞ্জে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগ স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম।
ঐ বৈঠকে সভাপতিত্বকারী কানাইঘাটের সাতবাক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ পলাশ জানান, অভিযোগ পেয়ে মন্ত্রী নির্বাচনের আগ পর্যন্ত জকিগঞ্জ উপজেলার ৩৯ জন দপ্তরী নিয়োগ স্থগিতসহ সারাদেশের প্রাথমিক দপ্তরী নিয়োগ স্থগিত করার জন্য প্রাথমিক গণশিক্ষা সচিব ও ডিজিকে মৌখিক নির্দেশ দিয়েছেন। জকিগঞ্জের নিয়োগ বন্ধের জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও জকিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেন।
জকিগঞ্জের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগ স্থগিতের বিষয়টি জকিগঞ্জ উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী সাইফুল ইসলামও স্বীকার করেছেন। তবে জকিগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজন কুমার সিংহ বলেন, আমি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ছিলাম বিষয়টি শুনেছি অফিসিয়ালি কাগজপত্র ফেলেই স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত হবো।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাসুম বিল¬াহ চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নিজাম উদ্দিন, আইন সম্পাদক বিপ¬ব দাস, সাইফুর রহমান রাজন, মাহফুজ, কানাইঘাট আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এডভোকেট মামুনুর রশিদ, চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, কবির আহমদ প্রমুখ। উল্লেখ্য, ১১,১২ ও ১৩ অক্টোবর জকিগঞ্জের ৩৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগের জন্য ৩৫৬জন প্রার্থী মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেন। ১৩ অক্টোবর শনিবার রাত সাড়ে দশটায় ফলাফল প্রকাশ হয়।

     এ জাতীয় আরো খবর