,

যৌন হয়রানীর প্রতিবাদে জকিগঞ্জে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ : থানায় অভিযোগ

জকিগঞ্জ ১৪.৮.২০১৮ ::
বিদ্যালয় থেকে সহপাঠীদের সাথে বাড়ি ফেরার পথে সোমবার জকিগঞ্জের জোবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে উত্যক্ত করে বাবুর বাজার এলাকার সিমেরবন্দ গ্রামের ময়নুল ইসলামের ছেলে আকছার আহমদ। সোমবার বিকেলে বিষয়টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে লিখিতভাবে জানায় ঐ ছাত্রীর পরিবার। অভিযোগে উল্লেখ করা হয় ঐ বখাটে নির্যাতিত ছাত্রীর টেনে হেছড়ে শরীরের জামা ছিড়ে ফেলে এবং জড়িয়ে ধরে মোবাইল ফোনে সেলফি উঠায়। ঐ মেয়ের সাথে থাকা সহপাঠীদেরকে বখাটে হুমকি দেয় ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে। তাদের সুর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে বখাটে কেটে পরে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আজির উদ্দিন লোকন বিষয়টির সমাধানের আশ্বাস দেন। ঘটনার পরের দিন তিনি জানান বখাটের পরিবার ইউপি সদস্যদের ডাকে সাড়া দেয়নি তবে বখাটে আকছারের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করে। মঙ্গলবার বিষয়টি জানাজানি হলে শিক্ষার্থীরা ক্লাস ছেড়ে সকাল সাড়ে এগারটায় রাস্তায় নামে ঘটনার প্রতিবাদে। জকিগঞ্জ- কালীগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে রাখে প্রায় তিন ঘন্টা। তারা ২৪ ঘন্টার মধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করার দাবী জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও সুলতানপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম ঘটনা পৌঁছে শিক্ষার্থীদের দাবী অনুযায়ী এ বখাটেকে গ্রেফতার করার আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়। মঙ্গলবার বিকেলে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য ও শিক্ষকবৃন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজন কুমার সিংহর সাথে দেখা করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। সন্ধ্যায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হালিম বাদী হয়ে ঐ বখাটেকে আসামী করে জকিগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। জকিগঞ্জ-বিয়ানীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাক সরকার বলেন, যৌন হয়রানীর ঘটনা আপোষযোগ্য নয়। কালক্ষেপন না করে ঘটনার পর পরই বিষয়টি পুলিশকে জানালে অভিযুক্তকে আটক করা সহজ হতো। তিনি বলেন, লিখিত অভিযোগ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

     এ জাতীয় আরো খবর