,

৪৭ বছর পর সংস্কার হচ্ছে জকিগঞ্জের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

জকিগঞ্জ(সিলেট)::
জকিগঞ্জে দীর্ঘ ৪৭ বছর পর ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত পূরাতন শহীদ মিনার ভেঙ্গে নতুন করে দৃষ্টিনন্দন শহীদ মিনার নির্মাণ কাজ বৃহস্পতিবার শুরু করেছে উপজেলা প্রশাসন। ২৭ নভেম্বর উপজেলা পর্যায়ে বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় এই শহীদ মিনার সংস্কারের সিদ্ধান্ত হয়।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রথম মুক্তাঞ্চল জকিগঞ্জে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মিত হয় স্বাধীনতার পরের বছরই। সাদামাটাভাবে নির্মিত শহীদ মিনারে আধুনিকতার কোনো ছোঁয়া লাগেনি ভাষা আন্দোলনের দীর্ঘ ৬৬ বছর পরও। ডাক বাংলো সড়কের দি পাবলিক লাইব্রেরী জকিগঞ্জের সামনে নির্মিত এ শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ২০০৪ সাল থেকে নিয়মিত অমর একুশের চেতনায় বই মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ভাষা দিবস, স্বাধীনতা দিবস ও বিজয় দিবসে প্রগতিশীল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদন করে থাকেন। যে দিকে ফুল দেয়া হয় সে দিকেই প্রস্থান করতে হয়। ফলে জটলা ও ঝামেলা সৃষ্টি হয়। অথচ দীর্ঘ ৪৭ বছর ধরেই স্থানীয় রাজনীতিবিদ, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও পৌর পরিষদের কারো শুভ দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়নি নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের প্রতি। গত মঙ্গলবার জকিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় তা পূর্ণনির্মাণের দাবী তুলেন জকিগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার। তিনি জকিগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেহাল অবস্থার কথা তুলে ধরে পূণঃনির্মাণের প্রস্তাব দেন। এ সময় উপস্থিত সকলেই তা পুনঃনির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণের জন্য ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদারের নিকট দাবী তুলেন। এরই প্রেক্ষিতে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজন কুমার সিংহ ও পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী খলিল উদ্দিন সহ উপজেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের সহযোগিতায় তিনি কাজ শুরু করেন। বৃহস্পতিবার নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজন কুমার সিংহ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুস সালাম, পজীপ কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন, বীরশ্রী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম পানু, জকিগঞ্জ সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, জকিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সহ সভাপতি এম. আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাধারণ সম্পাদক শ্রীকান্ত পাল, যুগ্ম সম্পাদক রহমত আলী হেলালী, কোষাধ্যক্ষ এনামুল হক মুন্না, ইউপি সদস্য আব্দুল মুকিত, উদ্যোক্তা সাইফুর রহমান স্বীপন ও প্রবাসী মহসিন আহমদ প্রমূখ। এ সময় প্রশাসনের এমন উদ্যোগকে এলাকার শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনীতিবীদ, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ স্বাগত জানান।
এ বিষয়ে জকিগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, দীর্ঘদিন থেকে অযতœ ও অবহেলায় পড়ে থাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারটি পুনঃনির্মাণের উদ্যোগ নিলে জকিগঞ্জের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ স্বতস্ফুর্তভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি আশা করেন আগামী বিজয় দিবসের আগেই নতুন এই শহীদ মিনারের কাজ শেষ হবে।

     এ জাতীয় আরো খবর