,

ঐক্যফ্রন্টের চার নেতা ড. কামাল হোসেন, আ স ম আবদুর রব, কাদের সিদ্দিকী, মাহমুদুর রহমান মান্না বেছে নিলেন ধানের শীষ প্রতীক
গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা পার্টির সভাপতি কাদের সিদ্দিকী ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার নির্বাচনি প্রতীক এখন ধানের শীষ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টভুক্ত দলগুলো একক প্রতীক হিসেবে বিএনপির ধানের শীষকে বেছে নেওয়ায় ড. কামালের গণফোরামের উদীয়মান সূর্য, জেএসডির তারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের গামছা এবার ব্যালট পেপারে নির্বাচনি প্রতীক হিসেবে থাকছে না।
আজ বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) বিকালে নির্বাচন কমিশনে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট। এ চিঠিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একক প্রতীক হিসেবে ধানের শীষকে বেছে নেওয়ার কথা জানানো হয়েছে নির্বাচন কমিশনকে।

এর আগে দুপুরে মতিঝিলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে স্টিয়ারিং কমিটির এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন ফ্রন্টের আরেক নেতা ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

এছাড়াও বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটভুক্ত বেশিরভাগ দলই ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে নিশ্চিত করেছেন।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টভুক্ত নিবন্ধিত দলগুলোর ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করার বিষয়ে একটি চিঠি আজ বিকাল সাড়ে তিনটায় নির্বাচন কমিশনে জমা দেন গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি সুব্রত চৌধুরীর নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। এ চিঠি জমা দেওয়ার পর সুব্রত চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সম্মিলিতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি ঐক্যফ্রন্টভুক্ত দলগুলো যার যার দল থেকে নির্বাচন করবে এবং প্রতীক হিসেবে ধানের শীষ ব্যবহার করবে।
তিনি আরও জানান, এর আগে গণফোরাম দলীয় প্রতীক উদীয়মান সূর্য প্রতীকে নির্বাচন করার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছিল। নতুন সিদ্ধান্তের ফলে এখন আমরা ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করবো। এ বিষয়টিই নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে বিএনপিসহ নিবন্ধিত দল রয়েছে চারটি। এরমধ্যে আ স ম আবদুর রবের দল জেএসডি’র ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে আগেই অবহিত করেছে।
অপরদিকে কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন কৃষক-শ্রমিক-জনতা লীগ তাদের দলীয় প্রতীক গামছা ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রতীকে অংশ নেবে বলে জানিয়েছিল। এখন তারাও ধানের শীষ প্রতীকে অংশ নেবে।
এদিকে ঐক্যফ্রন্টের আরেকটি দল নাগরিক ঐক্য। এ দলটির প্রতীক চারটি জোটবদ্ধ হাত, যা সম্মিলিত ঐক্যকে বোঝায়। কিন্তু মাহমুদুর রহমান মান্নার দলটি নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত নয়। তবে জোটবদ্ধভাবে নির্বাচন ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনি প্রতীক ধানের শীষ হওয়ায় তিনিও এই প্রতীকে নির্বাচন করবেন।
দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে ফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মান্না বলেন, ‘আমরা যতগুলো দল মিলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করেছি, তারা সবাই একটি কমন প্রতীক নিয়ে এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো এবং সেই কমন প্রতীক হবে ধানের শীষ।’
বৈঠকে ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গণফোরামের মহাসচিব মোস্তফা মহসীন মন্টু, ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মুহাম্মদ মনসুর, আব্দুল মালেক রতন, সুব্রত চৌধুরী, জেএসডির আ স ম আব্দুর রব ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাসহ অনেকে।

প্রসঙ্গত নিজ নিজ দল গঠন করার আগে ড. কামাল হোসেন, আ স ম আবদুর রব, কাদের সিদ্দিকী ও মাহমুদুর রহমান মান্না আওয়ামী লীগ বা ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। এদের মধ্যে আ স ম আবদুর রব ছাড়া বাকিদের নৌকা মার্কা নিয়ে জাতীয় নির্বাচন করার অতীত অভিজ্ঞতা রয়েছে।

এদিকে, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটভুক্ত বেশিরভাগ দল বিএনপির নির্বাচনি প্রতীক ধানের শীষকেই বেছে নিয়েছে। তবে জোটের বড় শরিক জামায়াত নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন হারানোয় তারা স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনের কথা জানিয়েছে। আর অপর শরিক কর্নেল (অব.) অলি আহমেদের নেতৃত্বাধীন লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এলডিপি) দলীয় প্রতীক ছাতা ও বিএনপির প্রতীক ধানের শীষে ভোট করতে চায়। এ দলটি রবিবার (১১ নভেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি চিঠি নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে। ২০ দলীয় জোটের অপর বড় শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ জোটের বৈঠকে নির্বাচনে যাওয়া নিয়ে নেতিবাচক মনোভাব দেখালেও শেষ পর্যন্ত জোটের সিদ্ধান্তে নির্বাচনে যাচ্ছেন। তবে তাদের দলীয় প্রতীক গরুর গাড়ি হলেও ২০০৮ সালে তিনি ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করেছেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।
প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরিকরাও ২০০৮ ও ২০১৪ সালের মতো এবারও নির্বাচনি প্রতীক হিসেবে প্রধান শরিক আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে এই নির্বাচনে জাসদের (ইনু) মশাল, ওয়ার্কার্স পার্টির হাতুড়ি-কাস্তেও ব্যালট পেপারে দেখা যাবে না। তবে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অপর প্রধান শরিক জাতীয় পার্টিই কেবল তাদের নিজেদের প্রতীক লাঙল নিয়ে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দলটি ২০০৮ সাল থেকে মহাজোটে থাকলেও বরাবরই নিজস্ব প্রতীকে নির্বাচন করে আসছে।
এদিকে, সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন বিকল্পধারা নিজেদের দলীয় প্রতীক কুলা মার্কা নিয়েই ভোট করবে। এই দলটির নেতৃত্বে গঠিত হয়েছে যুক্তফ্রন্ট নামে অপর একটি রাজনৈতিক জোট। নির্বাচনি জোট গঠনের ধারাবাহিকতায় যুক্তফ্রন্টের আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটে যোগ দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে। যদি আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটটির সমঝোতা হয় তাহলে বিকল্পধারাসহ এই জোটভুক্ত দলগুলোর যারা নির্বাচনে অংশ নেবেন তাদেরও নির্বাচনি প্রতীক হবে নৌকা। আজ বৃহস্পতিবার বিকালে নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নান স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে এ কথা বলা হয়েছে।

     এ জাতীয় আরো খবর