,

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সপ্তদশ ভাষণ

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে জাতিসংঘের ৭৫ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম বিশ্বনেতারা এই অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন ‘ভার্চুয়ালি’।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও জাতিসংঘে তার ভাষণটি দিচ্ছেন ধারণ করা ভিডিওর মাধ্যমে।

সরকার প্রধান হিসেবে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে এটি শেখ হাসিনার সপ্তদশ ভাষণ।

ভাষণের শুরুতেই কোভিড-১৯ মহামারীর বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, “আমরা মানব ইতিহাসের এক অভাবনীয় দুঃসময় অতিক্রম করছি।

“জাতিসংঘের ইতিহাসেও এই প্রথমবারের মতো নিউ ইয়র্কের সদরদপ্তরে সদস্য দেশসমূহের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানগণের অনুপস্থিতিতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।”

“এই কক্ষে এর আগে ১৬ বার স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে বিশ্বশান্তি ও সৌহার্দ্যের ডাক দিয়েছি। সরকার প্রধান হিসেবে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে এটি আমার ১৭তম বক্তৃতা।”

জাতিসংঘের সভাকক্ষটি ঘিরে ‘ব্যক্তিগত আবেগের’ কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “১৯৭৪ সালে এই কক্ষে দাঁড়িয়ে আমার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি সদ্য স্বাধীন দেশের সরকার প্রধান হিসেবে মাতৃভাষা বাংলায় প্রথম ভাষণ দিয়েছিলেন।”

মহামারীর বিরুদ্ধে যারা লড়ছেন, তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি স্বাস্থ্যকর্মীসহ সকল পর্যায়ের জনসেবকদের, যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ও জনগোষ্ঠীকে সুরক্ষা দিয়ে চলেছেন।

“সাধুবাদ জানাই জাতিসংঘ মহাসচিবকে এই দুর্যোগকালে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও বহুপাক্ষিক উদ্যোগের জন্য। বাংলাদেশ শুরু থেকেই যুদ্ধ বিরতিসহ তার অন্যান্য উদ্যোগসমূহকে সমর্থন জানিয়ে আসছে।”
( বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

 

     এ জাতীয় আরো খবর